AdsenseFeatured

এডসেন্সের জন্য এপ্লাই করার আগে যে কাজগুলো করবেন

গুগল এডাসেন্স অনেকেরই কাছে একটা সোনার হরিণের মতোন। যদি এর সঠিক ব্যবহার আর যত্ন করা যায় তাহলে সারাজীবন এটি থেকে আয় করা সম্ভব। আপনার ওয়েবসাইটটি যদি গুগল এডসেন্সের জন্য এপ্লাই করতে চান বা এপ্লাই করতে যাচ্ছেন তাহলে এই টিউনটি আপনার জন্য। সম্পূর্ণ টিউনটি মনযোগ দিয়ে পড়বেন। আর যারা এ বিষয়ে নতুন তারাও সম্পূর্ণ টিউনটি পড়ুন কারণ এই টিউন থেকে গুগল এডসেন্স নিয়ে জ্ঞান আরোহণ করতে পারবেন। যা আপনার ভবিষ্যতে কাজে আসবে।

টিউনটি শুরুর আগে বলে নিতে চাচ্ছি, আপনি যদি উইকিবিএনের একজন নিয়মিত ভিজিটর হন অথবা এডসেন্স নিয়ে পাবলিশ করা “গুগল এডসেন্স (Google Adsense) কি? গুগল এডসেন্স নিয়ে বিস্তারিত জানুন” এই টিউনটি পড়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই জানেন ওই টিউনে আমি বলেছিলাম এডসেন্স নিয়ে আরো কিছু কনটেন্ট পাবলিশ করব। তাই, এই টিউনটি পাবলিশ করেছি। এই টিউনগুলোর মাধ্যমে আমি উইকিবিএনের ভিজিটরদের এডসেন্স নিয়ে বিস্তারিত/ পূর্ণাজ্ঞভাবে কিছু জানানোর ছোট একটা চেস্টা করতেছি। তাই অবশ্যই ধারাবাহিকভাবে টিউনগুলো পড়ুন। তাহলে এডসেন্স নিয়ে আপনার মনে যে কনফিউশন আছে তা আশা করছি দূর হয়ে যাবে।

এখন আসি আসল কথায়। গুগল এডসেন্সে এপ্লাই করার আগে আপনার কি করা উচিত!! আমার বলা এই কাজগুলো যদি আপনি করেন তাহলে এডসেন্স পেতে আপনার কোন সমস্যা হবে না বলে আমি মনে করি।

গুগল এডসেন্সের জন্য এপ্লাই করার আগে যা করবেন

ডোমেইন

টপ লেভেল ডোমেইন এক্সটেনশনের (.com, .net, .org, .xyz ইত্যাদি) এডসেন্স এপ্রুভাল হওয়ার সম্ভাবনা কিন্তু বেশী থাকে। আপনি যদি ফ্রি কোন ডোমেইন (.tk, .ml, .cf ইত্যাদি) দিয়ে এডাসেন্সের জন্য এপ্লাই করতে যান তাহলে আমি বলব অযথা আপনি আপনার সময় নষ্ট করিয়েন না। এসব ফ্রি ডোমেইনে এডসেন্স পাওয়ার সম্ভাবনা নেই বললে চলে।

অপরদিকে, আপনি যদি ব্লগারের ফ্রি কাস্টম সাব ডোমেইন (.blogspot.com) দিয়ে এডসেন্স জন্য এপ্লাই করেন তবে এডসেন্সের এপ্রুভাল পেতে পারেন। তবে আমি আপনাকে সাজেশন করব একটা কাস্টম ডোমেইন যুক্ত করার জন্য। .xyz এক্সটেনশনের দাম প্রথম বছরের খুব বেশি নয়। মাত্র 2$ দিয়ে প্রথম বছরের জন্য কিনতে পারবেন। আর রিনিউ ফি 10$-15$ ডলারের মধ্যে। আপরদিকে অন্যান্য এক্সটেনশনগুলোর (.com, .net, .org ইত্যাদি) রিনিউ ফিও 10$-15$ এর মধ্যে। আর প্রথম বছরের জন্য 1$-10$ দিয়ে কিনতে পারবেন।

এত দম-দর বলে আমি আপনাকে যে বিষয়টা বোঝাতে চাচ্ছি আশা করছি তা আপনারা বুঝতে পেরেছন। সমান্য কিছু টাকা খরচ হলেও একটা টপ লেভেল ডোমেইন নিন আপনার সাইটের জন্য।

ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাচ্ছেন? তাহলে অবশ্যই অবশ্যই এই টিউনটি পড়ে নিবেন – ওয়েবসাইট তৈরির আগে যে বিষয়গুলোর দিকে খেয়াল রাখা উচিত

সাইটে বয়স

যদি আপনার সাইটের বয়স ৩ মাসে কম হয় তাহলে এপ্লাই করবেন না। আমি বলতেছি না যে সাইটে বয়স ৩ মাসের কম হলে এপ্লাই করা যাবে না। এপ্লাই করা যাবে কিন্তু আমি আমার আপিনিয়ন দিচ্ছি যে সাইটের বয়স ৩ মাসের কম হলে এপ্লাই না করাই ভালো।

আপনি একটা বিষয় খেয়াল করুন নতুন সাইট খোলার পর গড়ে সবার প্রায় ৭ দিন লাগে সাইটের সবকিছু ঠিকঠাক করে নিতে। এরপর সাইটের মূল প্রাণ কন্টেন্ট লিখতে ধরুন ১ মাস সময় লাগে। সপ্তাহে যদি ৩-৪ টা কন্টেন্ট সাইটে পাবলিশ করেন তাহলে মাসে ১২-১৮ টা কন্টেন্ট পাবিলিশ করতে পারবেন। তাছাড়া আপনার নতুন সাইট যদি সার্চ ইজ্ঞিনে সাবমিট করতে, সাইটের জন্য কিছু ব্যাকলিংক তৈরি করতে মিনিমাম ১ মাস সময় তো অবশ্যই দিতে হবে।

তবুও যদি এমন অবস্থায় আপনি আপনার সাইটের জন্য গুগল এডাসেন্সের জন্য এপ্লাই করেন তাহলে দেখবেন “Site Under Construction” ইস্যু দেখিয়ে এডসেন্স রিজেক্ট করে দিবে।

তাই আমার সাজেশন হবে, সব কিছু ঠিক মতো করে কমপক্ষে ৩ মাস পর এডসেন্সের জন্য আপিল করুন।

কন্টেন্ট

যেকোন ব্লগ সাইটের প্রাণ হলো কনটেন্ট। আর, ব্লগ সাইটে এডসেন্স এপ্রুভাল পাওয়ার সম্ভাবনা ১০০% যদি, এডসেন্সের নিয়ম মেনে সাইটে কনটেন্ট পাবলিশ করেন। আর, এডসেন্সের জন্য এপ্লাই করার পূর্বে অবশ্যই আপনার সাইটে পাবিলিশ করা কনটেন্টগুলো একবার রি-চেক করে নিবেন। যদি কোন কনটেন্টের রিমুভাল নোটিশ আসে বা থাকে তবে সেই কনটেন্টটি অবশ্যই ডিলিট করে দিবে। আর সবসময় চেস্টা করবে কী ওয়ার্ড রির্সাচ করে ইউনিক কনটেন্ট সাইটে পাবলিশ করার। আর যে ধরনের আর্টিকেল আপনার সাইটে রাখা উচিত হবে না –

  • কপি কনটেন্ট
  • সেক্সুয়াল কনটেন্ট
  • ড্রাগস নিয়ে লেখা কিছু
  • যুদ্ধাঅস্ত্র ও এসবের ব্যবহার নিয়ে কনটেন্ট থাকলে
  • তামাক বা অ্যালকোহল জাতীয় দ্রব নিয়ে লেখা থাকলে
  • গুগল প্লে-স্টোর থেকে ব্যান হওয়া অ্যাপ নিয়ে কোন কনটেন্ট থাকলে
  • মোড/ ক্রাক/ নাল স্ক্রিট জাতীয় কিছু
  • হ্যাকিং নিয়ে কোন কনটেন্ট থাকলে

এই ধরনের কনটেন্ট সাইটে না রাখাই ভালো আর গুগল এডসেন্সর জন্য আপিল করার আগে এমন সব কন্টেন্ট মুছে ফেলবেন। গুগল এডসেন্সের কনটেন্ট রেসটিকশন সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন – https://support.google.com/adsense/answer/9335567

থিম

বেশি কালারফুল থিম সাইটে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। সিম্পল, ফাস্ট লোডিং, এসইও ফ্রেন্ডলি ও মোবাইল ফ্রেন্ডলি থিম সাইটে ব্যবহার করুন। আর অবশ্যই কোন ভাবে নাল বা ক্রাক থিম ব্যবহার করবেন না। কারণ, এই সব থিমে ভাইরাস থাকতে পারে। ভাইরাস যুক্ত থিম কোনভাবে এডসেন্সের জন্য এপ্রুভ হবে না। এর চেয়ে ভালো ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের জন্য Wordpress Free Theme ব্যবহার করা। আর, ব্লগার সাইট হলেও ফ্রি থিম ব্যবহার করুন। তবে, আপনি চাইলে উইকিবিএনে পাবলিশ করা প্রিমিয়াম ব্লগার টেমপ্লেট ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারেন। এসব থিম ভাইরাস ফ্রি!!

এডসেন্সর জন্য বেস্ট কিছু ব্লগার টেমপ্লেট –

  1. WikiBN Old Blogger Template || Best Blogger Template
  2. Super SEO Premium Blogger Template free Download
  3. News52 এর প্রিমিয়াম ব্লগার টেমপ্লেটটি একদম বিনামূল্যে ডাউনলোড নিন যার দাম $15.95

তবে, সম্ভব হলে প্রিমিয়াম থিম কিনে ব্যবহার করুন। এটাই সব থেকে ভালো হবে।

প্রয়োজনীয় কিছু পেইজ তৈরি করে নিন

গুগল এডসেন্সের জন্য এ্যাপ্লাই করার আগে অবশ্যই কিছু পেইজ আপনাকে তৈরি করে নিতে হবে। যদি পেইজ গুলোন আগে থেকে তৈরি করা থাকে তাহলে আর কিছু করা লাগবে না।

যে পেইজগুলোন অবশ্যই তৈরি করতে হবে –

  1. About
  2. Contact
  3. Privacy & Policy

আরো যে পেইজগুলোন তৈরি করে রাখা ভালো –

  1. Desclaimer
  2. Dmca
  3. Sitemap
  4. FAQ

পেইজগুলোন তৈরির পর এই সব পেজের লিংক ফুটারে রাখবেন। এমনভাবে রাখবেন যাতে যে কেউ আপনার সাইটে ভিজিট করলে সহজেই লিংকগুলো খুজে পায়।

ভিজিটর

যদিও ভিজিটর এডসেন্স পাওয়ার মূল বিষয় না। কিন্তু, ভিজিটর না থাকলে কাকে এডস দেখাবে এডসেন্স? তাই চেস্টা করুন আপনার সাইটে ভিজিটর আনার দৈনিক জন্য ১০০+ পেইজ ভিউ হয় আপনার সাইট থেকে।

বেশি ভিজিটর পাওয়ার জন্য আপনার সাইটে লিংক বেশি বেশি করে সোসাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন। আর, চেস্টা করুন অর্গানিক ট্রাফিক আনার। এজন্য কী-ওয়ার্ড রিসার্চ করে সাইটে ভালোমানের কিছু কনটেন্ট পাবলিশ করুন।


এডসেন্সের জন্য এপ্লাই করার আগে আপনি যদি এই কাজগুলো করে তাহলে আপনার সাইটের জন্য খুব সহজেই এডসেন্স পাবেন। আপনার সাইটের এডসেন্স এপ্রুভাল পেতে তেমন কোন সমস্যা হবে না বলে আমি মনে করি। যদি এডসেন্স এপ্রুভাল না করে তবে চিন্তা করবেন না। যে কারণে এডসেন্স রিজেক্ট করেছে সেই ইস্যুগুলো ফিক্স করে আবার এডসেন্সর জন্য এপ্লাই করুন। এডসেন্স রিজেক্ট করলে কি করবেন এ নিয়ে আমি আরেকটি টিউন খুব শিঘ্রই সাইটে পাবলিশ করব।

নতুন সাইট খোলার আগে আমাদের ডোমেইন নির্বাচন, হোস্টিং কেনার প্রয়োজন হয়। তাই এ নিয়ে কিছু টিউনও সাইটে পাবলিশ করা হবে। ওয়েবসাইট তৈরি করার আগে এগুলো কিন্তু অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কাজ তাই এই টিউনগুলো আমি অবশ্যই পাবিলিশ করব। যদি আপনি এই টিউনগুলো মিস না করতে চান তাহলে নিয়মিতে আমাদের সাইটে ভিজিট করুন। আর আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক করুন।

wikibn

Everyone wants Happiness, Nobody wants Pain, But you can't make a Rainbow without a little Rain.

Related Articles

12 Comments

  1. আস্সালামু আলাইকুম ভাইয়া।
    শুরু থেকেই আপনার সাইটে রেগুলার ভিজিট করতাম।
    তবে আজকে রেজিস্ট্রেশন করলাম❗

Leave a Reply

Back to top button

Adblock Detected

Hey Dear!! Thank you for visit on WikiBN. Please Disable your AD Blocker to continue browsing.