BloggerWordpress

ব্লগার বনাম ওয়ার্ডপ্রেস | ব্লগিং এর জন্য কোনটি সেরা?

ব্লগার বনাম ওয়ার্ডপ্রেস!! যখনই ব্লগ বা ব্লগিং শব্দটা উচ্চারিত হয় তখন সর্বপ্রথম যে নাম দু’টি চলে আসে তা হলো “ওয়ার্ডপ্রেস” এবং অন্যটি “ব্লগার” বা “ব্লগস্পট”।

এই দুইটি শব্দের সাথে আমি ধীরে ধীরে পরিচিত হই। “ব্লগার” শব্দের সাথে পরিচিত ক্লাস ৫ এর দিক যখন দেশে একের পর এক ব্লগার কে হত্যা করা হয় আর “ওয়ার্ডপ্রেস” শব্দটার সাথে পরিচিত হই সেই তখন থেকে যখন ট্রিকবিডি ওয়াপকা থেকে ওয়ার্ডপ্রেস এ আনা হয়। তবে ইন্টারনেটের ব্লগিং দুনিয়ায় এই দুইটিই এখন কমন শব্দ।

বর্তমানে এই দুইটি প্লাটফর্ম এতটাই জনপ্রিয় হয়েছে যে নতুন যারা নতুন ব্লগ শুরু করার চিন্তা করছেন তারা প্রায়ই একটি বিষয় নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে থাকেন তা হলো ব্লগিং প্লাটফর্ম হিসেবে কোনটা বেছে নিবেন। আর আপনাদের এই দ্বিধা-দ্বন্দ্ব দূর করার জন্য আমার এই টিউনটি, আশা করছি আপনাদের এই দ্বিধা-দ্বন্দ্ব দূর করতে তা সহায়ক হবে।

কিভাবে ব্লগার সাইট এর কন্টেন্ট গুলো ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে স্থানান্তর করবেন।

তো এবার চলেন মূল পয়েন্টে আসি। টিউনটি ভালোভাবে মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য অনুরোধ রইল।

মালিকানা

হয়তো জানেন যে “ব্লগার.কম” জায়ান্ট গুগল প্রদত্ত ফ্রি ব্লগিং সার্ভিস। যার সম্পূর্ণ মালিকানা ও কর্তত্ব গুগল বহন করে। এখানে আপনি শুধুমাত্র একজন ব্লগ প্রকাশক।

কিন্তু, অন্যদিকে “ওয়ার্ডপ্রেস.অর্গ” হলো একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ ও স্বাধীন কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিএমএস) যা আপনি ফ্রি ডাউনলোড করে নিজস্ব হোস্টিংয়ে ব্যবহার করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে ব্লগের সম্পূর্ণ মালিকানা আপনার হাতে।

খরচ

খরচ এর দিক থেকে কিন্তু ব্লগার অনেক সাশ্রয়ী কেননা এখানে আপনার সমস্ত দায়ভার বহন করছে স্বয়ং গুগল। আর আপনি পাচ্ছেন আনলিমিটেড ব্যন্ডওয়াইড, সাবডোমেইন এবং কিছু থিম। যা আপনার ব্লগিং এর জন্য দারুন সাশ্রয়ী।

আবার, অন্যদিকে “ওয়ার্ডপ্রেস.অর্গ” যেহেতু নিজস্ব ডোমেইন এবং হোস্টিংয়ে ব্যবহার করতে হয় তাই আপনাকে ডোমেইন এবং হোস্টিং বাবদ একটি নির্দিষ্ট অর্থ বহন করতে হবে। খরচটি ডোমেইনের জন্য বাৎসরিক এবং হোস্টিংয়ের জন্য হোস্টিং ধরন অনুযায়ী দৈনিক, মাসিক বা বাৎসরিক হতে পারে।

সিকিউরিটি

ব্লগ সাইটের ডাটা সুরুক্ষিত রাখতে সিকিউরিটি অনেক বড় একটা ফেক্টর। ব্লগার যেহেতু সরাসরি গুগলের নিজস্ব সার্ভার দ্বারা পরিচালিত হয় তাই এর সিকিউরিটির দায়িত্ব সম্পূর্ণরূপে গুগলের ওপর। এজন্য আপনি যে জিমেল দিয়ে ব্লগার খুলেছেন সেই জিমেইল অ্যকাউন্ট কে সুরক্ষিত রাখতে হবে। ২ স্টেপ এর পাশাপাশি স্ট্রং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে।

অন্যদিকে, ওয়ার্ডপ্রেসে যেহেতু নানা ধরনের প্লাগইন ও থিম ব্যবহার করা হয় তাই ওয়ার্ডপ্রেসে কোন সিকিউরিটি দূর্বলতা না থাকলেও এসব থিম বা প্লাগইনে দূর্বলতা থাকলে আপনার সাইটের ক্ষতি হতে পারে। ওয়ার্ডপ্রেসে বিভিন্ন ধরনের প্লাগইন ব্যবহার করে সিকিউরিটি বাড়ানো যায়। এর পাশপাশি আপনার হোস্টিং কেও সিকিউর রাখতে হবে।

আয়

শুধু কী ব্লগিং করলেই হবে?? কিছু তো আয় ও করতে হবে। আপনি যদি প্রথম দিকে তেমন খরচ করতে না চান তবে ব্লগার কে বেচে নিতে পারেন। আরও বেশি আয়ের জন্য গুগল এডসেন্স এর এপ্লাই করতে পারেন।

নিয়ন্ত্রণ

ব্লগারে আপনার নিয়ন্ত্রণ সীমিত। এখানে আপনি সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না। যেমন ডাটাবেসের নিয়ন্ত্রণ আপনার হাতে থাকবে না। আপনার পোস্ট, পেজ বা ক্যাটাগরি ইউআরএল স্ট্রাকচার নির্ধারণ করে দিতে পারবেন না।
কিন্তু “ওয়ার্ডপ্রেস” এ তা সম্পূর্ণ বিপরীত। এখানে আপনি সমস্ত কিছুর নিয়ন্ত্রণ পাবেন।

সহজবোধ্যতা

ব্লগার পরিচালনা করা খুবই সহজ। আপনি আনায়াসে তা শিখতে পারবেন। কেননা এর ড্যাসবোর্ড অনেক সাজালো, গোছালো এবং পরিষ্কার। আর এর ফাংশনালিটি অনেক কম।

কিন্তু অন্যদিকে, ওয়ার্ডপ্রেস এর ফাংশনালিটি অনে বেশি তাই এটা পরিচালনা করা অনেক কস্টসাধ্য।

পরিধি

ব্লগার দ্বারা আপনি ব্যক্তিগত পোর্টফলিও থেকে শুরু করে কোম্পানি ওয়েবসাইট, কমিউনিটি ব্লগ, নিউজ সাইট, ই-কমার্স সাইটসহ আরও বেশ কিছু ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে এর পরিধি তেমন বৃহৎ নয়। তাছাড়া এতে অনেক আপনি ফাংশন পাবেন না।

কিন্তূ অন্যদিকে ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার এর মধ্যমে আপনি যেকোন ধরেনর সাইট বনাতে পারবেন। এমনকি ফেসবুকের মতোন একটা সাইটও।

ক্ষমতায়ন

ব্লগার ডট কমে আপনার ক্ষমতা সীমিত। ব্লগ প্রকাশক হিসেবে আপনি ব্লগে তিনটি অ্যাকসেস দিতে পারবেন। যেটা আপনি ব্লগার এর “Setting” নামক অপশন থেকে করে পরির্তন থেকে করে নিতে পারবেন।

  • সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত ব্লগ : আপনি নিজে ছাড়া অন্য কেউ ব্লগ ভিজিট করতে পারবে না। এ ধরনের অ্যাকেসের মাধ্যমে সাধারণত সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত ডায়েরি তৈরি করা হয়।
  • নির্দিষ্ট পাঠক ব্লগ : আপনি ইমেইল ইনভাইটেশন পাঠিয়ে নির্দিষ্ট করে দিতে পারবেন কারা কারা আপনার ব্লগের পাঠক হবে। সেক্ষেত্রে অন্য কেউ ব্লগ পড়তে পারবে না কিংবা পাঠক হওয়ার জন্য অনুরোধও করতে পারবে না।
  • সার্বজনিন ব্লগ :এক্ষেত্রে যে কেউ চাইলে বিশ্বের যে কোন প্রান্ত হতে আপনার ব্লগ পাঠ করতে পারবে।

কিন্তু আপনি নির্ধারিত কোন ব্লগ বা পেজ এই রকম করতে পারবেন।

অপরদিকে, ওয়ার্ডপ্রেসে আপনি ইচ্ছামতো যেকোন পেজ বা ব্লগে এই সিস্টেম করতে পারবেন।

এসইও

ব্লগার যেহেতু সর্ববৃহৎ সার্চ জায়ান্ট গুগলের মালিকাধীন তাই এটি যে ডিফল্টভাবেই এসইও ফ্রেন্ডলি তা বলার অপেক্ষা রাখে না। আপনি যদি এসইও সম্পর্কে একেবারেই অজ্ঞ হোন সেক্ষেত্রে ব্লগারের চেয়ে ভালো কোন প্লাটফর্ম আর নেই। ব্লগারে অন্য যেকোন প্লাটফর্মের চেয়ে ইমেইজ খুব ভালো এসইও র্যাংক করে। তবে ব্লগারে অ্যাডভান্স লেবেলের এসইও সম্ভব নয়।

ওয়ার্ডপ্রেস ডিফল্টভাবে এসইও স্ট্র্যাকচার ফলো না। তবে এটি বেশ এসইও ফ্রেন্ডলি। কিছু সেটিং ঠিক করে নিলে সার্চ র্যাংকিয়ে বেশ ভালো ফল পাওয়া যায়। তাছাড়া বিভিন্ন প্লাগইন ব্যবহার করে অ্যাডভান্স লেবেলে এসইও করা সম্ভব।
[Collect form Google]

কাস্টমাইজেশন

ওয়ার্ডপ্রেস এর চেয়ে ব্লগার এর কাস্টমাইজেশন অনেক সহজ কিন্তু এ জন্য “Html & Css” জানতে হবে।

আমার পরামর্শ

যদি আপনি ব্লগিং এ নতুন হন আর প্রাথমিক অবস্থায় টাকা খরচ করতে না চান তবে আপনার ব্লগার বেচে নেওয়া উচিত বলে আমি মনে করি। এখন বাকীটা আপনার উপর। আপনার কোনটা পছন্দ।

আশাকরি আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করার পূর্বে এটি আপনার কাজে লাগবে। এতক্ষণের আলোচনা ও সুপারিশকৃত পোস্ট থেকে আপনি হয়তো সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছেন ব্লগিংয়ের জন্য আপনার বেস্ট প্লাটফর্ম কোনটি।  তাহলে আপনার জন্য অনেক অনেক শুভকামনা। যে কোন সমসায় আপনি কমেন্ট করতে পারেন।

Tags

Imran Hossan

Everyone wants Happiness, Nobody wants Pain, But you can't make a Rainbow without a little Rain.

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Hey Dear!! Thank you for visit on WikiBN. Please Disable your AD Blocker to continue browsing.